বিটকয়েন মাইনিং কি,বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয় (Bitcoin Mininig Ki,Bitcoin Kivabe Toiri Kora Hoy)

বিটকয়েনের নাম তো অনেক শুনেছেন কিন্ত বিটকয়েন মাইনিং কি, সে ব্যাপারে আমাদের ধারণা কিন্তু অনেক কম। বিটকয়েন কি নিয়ে চর্চা থাকলেও বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয় আমরা কিন্তু অনেকেই জানিনা।

আপনারা হয়তো লক্ষ করেছেন বিটকয়েনের দাম দিন প্রতিদিন কখনো বাড়ে তো আবার কখনো কমে। এখন কারো কাছে যদি ০২-০১ টি বিটকয়েন থেকে থাকে তাহলে সেই ব্যক্তি আজ কোটিপতি।

কিন্তু আপনাদের মনে কখনো কি এরকম প্রশ্ন মনে জাগেনি বিটকয়েন কোথা থেকে এসেছে, বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয় কিংবা বিটকয়েন কে তৈরী করে, বিটকয়েন তৈরী করার আসল প্রসেস কি ?

চলুন তাহলে আজকে আমরা বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয়, বিটকয়েন মাইনিং কি তার প্রসেস গুলো একটু জানার চেষ্টা করি। সাধারণভাবে দেখতে গেলে বিটকয়েন মাইনিং দ্বারা দুটি কাজ একসঙ্গে করা হয়।

প্রথমত বিটকয়েনের যাবতীয় জমা খরচের খসড়া ব্লকচেইনে সংগ্রহ করে রাখা, আবার ওপেন সোর্স সফ্টওয়ার দ্বারা নতুন বিটকয়েন তৈরী করে বাজারে নিয়ে আসা।

তবে বিটকয়েন মাইনিঙে প্রধানত নতুন ট্রানজেকশন compile করে ব্লকে লিপিবদ্ধ করা এবং computationally difficult Puzzle করার কাজ গুলো করতে হয়।

এখানে প্রথমে যে বিটকয়েন মাইনর participant Puzzle solve করতে পারে সেই participant,পরবর্তী ব্লক place করে ব্লকচেইন বানিয়ে ফেলে পুরুস্কারের হকদার হয়ে যায়।

বিটকয়েন মাইনরদের পুরুস্কার স্বরূপ ফ্রিতে বিটকয়েন দেওয়া হয়। যাকে আপনারা বিটকয়েনের ট্রানজেকশন শুল্ক বলতে পারেন। চলুন তাহলে বিটকয়েন মাইনিং কি, বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয় পুরো ফান্ডা বোঝা যাক।

বিটকয়েন মাইনিং কি (Bitcoin Mining Ki Bangla)

বিটকয়েন মাইনিং শব্দটা শুনলে মনে হয় যেমন করে সোনার খাদান বা খনি থেকে সোনা উত্তোলন করা হয়, ঠিক একইভাবে হয়ত বিটকয়েন কোনো খাদান থেকে খুঁড়ে বার করা হয়।

আপনাদের মনে যদি এরকম কোনো ধারণা থাকে যে বিটকয়েন খনি থেকে খনন করে উত্তোলন করা হয়, তাহলে কিন্তু আপনি এখানে একেবারে ভুল।

কেননা বিটকয়েন মাইনিং (Bitcoin mining) করে উত্তোলন করা হয় ঠিকই, তবে তা সোনা উত্তোলন করার মত কোনো খনি থেকে উত্তোলন করা হয়না। এখানে বিটকয়েন মাইনিং মানে কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা।

বিটকয়েনকে ডিজিট্যালি কম্পিউটারের হার্ডওয়ারের সাহায্যে বিভিন্ন process এর মধ্যে দিয়ে তৈরী করার পর, তার যাবতীয় লেনদেনের খসড়া সিস্টেমেটিকলি সুন্দরভাবে Synchronized করা হয়।

বিটকয়েন মাইনিং এক প্রকারের Decentralized system ডেটা সেন্টারের মত,যা বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে উপস্থিত বিটকয়েন মাইনরদের দ্বারা পরিচালিত হয়।

বিটকয়েন মাইনিঙের পুরো ইকোসিস্টেম কোনো এক-দুজন বিটকয়েন মাইনরের দ্বারা পরিচালন করা সম্ভব নয়,তাই বিটকয়েন মাইনরদের এই ইকো সিস্টেমকে Decentralized system বলা হয়।

সোনার খনিতে শ্রমিকদের যেমন খনন করার জন্যে পারিশ্রমিক দেওয়া হয়, ঠিক তেমনভাবে বিটকয়েন মাইনরদের বিটকয়েন ট্রানজেকশন পুরো করার জন্যে পুরুস্কার দেওয়া হয়।

এখানে যে সমস্ত বিটকয়েন মাইনররা যত তাড়াতাড়ি যত পরিমানে বিটকয়েন তৈরী করে ট্রানজেকশন করতে পারে, তাকে তত বেশি পুরুস্কার দেওয়া হয়।

বিটকয়েন মাইনিং শুধু নতুন বিটকয়েন তৈরী করার কাজে ব্যবহার করা হয়না, বিটকয়েন এক ওয়ালেট থেকে অন্য ওয়ালেটে ট্রান্সফারের সঙ্গে সঙ্গে নতুন বিটকয়েন মাইনিঙের কাজ চলতে থাকে।

বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয় (Bitcoin Kivabe Toiri Kora Hoy)

বিটকয়েন মাইনিং কি, বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে এবং বিটকয়েন কিভাবে তৈরী করা হয় আসুন আমরা একটু বোঝার চেষ্টা করি। আপনি কি জানেন বিটকয়েন মাইনিং আপনিও করতে পারেন।

কিন্তু বিটকয়েন মাইনিং করার জন্যে আপনার কাছে কম্পিউটারের specialized Hardware এবং Bitcoin Mining Software থাকতে হবে।

বিটকয়েন মাইনিং সফ্টওয়ার দিয়ে বিটকয়েনের যাবতীয় ট্রানজেকশন প্রসেস confrom করা হয়। বিটকয়েন মাইনররা বিটকয়েন ট্রানজেকশন পুরো করে দেওয়ার বিনিময়ে ট্রানজেকশন ফিস পায়।

বিটকয়েনের ট্রানজেকশন পক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করার জন্যে এবং নতুন একটি ট্রানজেকশনকে confrom করার জন্যে বিটকয়েনের ট্রানজেকসনকে একটি ব্লকের মধ্যে অ্যাড করতে হয়।

যার সাথে খুবই দ্রুত Mathematical Proof Of Work কমপ্লিট করতে হয়। এই ধরণের সঠিক গাণিতিক বিশ্লেষণ করা অনেক অনেক কষ্টসাধ্য একটা ব্যাপার।

এই ধরণের কঠিন গাণিতিক বিশ্লেষণের সঠিক উত্তর প্রদান করার একটিই উপায় হল, যেখানে প্রতি সেকেন্ডে আপনাকে কম্পিউটার হার্ডওয়ারের সাহায্যে Billions of Calculation per Second এ পুরো করতে হবে।

বিটকয়েনের ট্রানজেকশন প্রসেস পুরো করার জন্যে বিটকয়েন মাইনরদের সমস্ত calculation, Block Network দ্বারা ট্রানজেকশন Accept হওয়ার আগেই সম্পূর্ণ করতে হয়।

বিটকয়েনের ট্রানজেকশন দ্রুত সম্পন্ন করার জন্যে ট্রানজেকশন ফিস বাবদ বিটকয়েন মাইনরদের পুরস্কৃত করা হয়। সময়ের সাথে সাথে ক্রিপ্টো নেটওয়ার্কে যেমন যেমন বিটকয়েন মাইনররা অ্যাড হতে থাকে,

বিটকয়েন মাইনরদের কাছে তখন একটি সঠিক ব্লক নির্বাচন করে বিটকয়েনের ট্রানজেকশন প্রসেস কমপ্লিট করা কঠিন হয়ে পড়ে। বিটকয়েনের নেটওয়ার্ক দ্বারা একটি ব্লক খোঁজার জন্যে মাইনরদের ১০ মিনিট সময় বেঁধে দেওয়া হয়।

ঐ সময়ের মধ্যে একটি সঠিক ব্লক নির্বাচন করে মাইনরদের বিটকয়েন ট্রানজেকশন পক্রিয়া সম্পন্ন করতে হয়। তাই বর্তমানে বিটকয়েন মাইনিং একটি competitive business এ পরিণত হয়ে গেছে,

যেখানে মাইনারদের হাতে কোনো কন্ট্রোল থাকেনা। যদি কোনো বিটকয়েন মাইনর নকল ট্রানজেকশন করে কাউকে ঠকানোর চেষ্টা করে তাহলে বিটকয়েন নেটওয়ার্ক বিটকয়েন মাইনরের ব্লকচেইন কে corrupt করে দেয়।

যার ফলে বিটকয়েন নোডস রিজেক্ট হয়ে যায় যার ফলে মাইনরের বাছাই করা ব্লকচেইন টি ইনভ্যালিড হয়ে যায়। তাই বিটকয়েন মাইনররা কখনই বিটকয়েনের নকল ট্রানজেকশন করে কাউকে ঠকাতে পারেনা

ব্লকচেইন টেকনোলজি কি শক্তি ও সময়ের অপপচয়

দেখুন কেউ যদি আমাকে আলাদা করে জিজ্ঞাসা করে বিটকয়েন ব্লকচেইন টেকনোলজি হল সময়ের অপচয় ? তাহলে আমার এখানে এক বাক্যে উত্তর হবে, না।

কেননা বিটকয়েন ব্লকচেইন টেকনোলজিতে সুচারুভাবে স্বল্প খরচে যদি কোনো অর্থব্যবস্থা বা payment system ঠিকঠাক ভাবে চালানো যায় তাহলে বিটকয়েন মাইনিঙের ব্লকচেইন টেকনোলজিকে কোনোভাবেই সময়ের অপপচয় বলা চলেনা।

সাধারণভাবে দেখতে গেলে যেকোনো payment সাভিস চালাতে গেলে, তাতে কিছু প্রসেসিং ফিস দিতে হয়। ঠিক একইভাবে বিটকয়েনের লেনদেনের জন্য খুব সামান্য পরিমানে সার্ভিস চার্জ দিতে হয়।

কিন্তু আমাদের দৈনন্দিন লেনদেনের তালিকায় ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ডে যে ভাবে প্রসেসিং চার্জ নেওয়া হয়, বিটকয়েনের ট্রানজেকশনে সেই তুলনায় অনেক কম সার্ভিস চার্জ দিতে হয়। বিটকয়েনের ডিজাইনে

সময়ের সাথে সাথে এমনসব পরিবর্তন নিয়ে আসা হচ্ছে যে বর্তমানে Specialized Hardware দিয়ে অনেক কম শক্তি ও সময় উপয়োগ করে বিটকয়েন তৈরী করা যাচ্ছে তাতে সময় ও শুল্ক দুটোই অনেক কম লাগছে।

বিটকয়েন মাইনিং কিভাবে বিটকয়েনকে সুরক্ষিত রাখে

বিটকয়েন মাইনিঙের সময় একটি competitive Lottery এর মত মডেল তৈরী করা হয়। যাতে কোনো ভাবেই একজন মাইনরের পক্ষে রেগুলারলি ট্রানজেকশনকে নতুন ব্লকচেইন ব্লকে সামিল করা সম্ভব নয়।

যা বিটকয়েনের লেনদেনকে বিশেষভাবে আরো বেশি সুরক্ষিত করে দেয়। সুতরাং কোনো বিটকয়েন মাইনর দ্বারা বিটকয়েন ট্রানজেকশন কন্ট্রোল করার কোনো হাত থাকেনা, বিটকয়েনের ব্লকচেইন বিটকয়েন নেটওয়ার্ক দ্বারা সঞ্চালিত হয়।

ব্লকচেইনের বিশেষ সুরক্ষিত নেটওয়ার্ক বিটকয়েনের লেনদেননের হেরাফেরি হওয়ার কোনো সুযোগ দেয়না। বিটকয়েনের ব্লকচেইনের ভিতর কোনো ব্যক্তি Transaction roll back করতে পারেনা।

বিটকয়েনের ট্রানজেকশন একবার পুরো হয়ে গেলে কোনো ভাবেই বিটকয়েনের ট্রানজেকশন রিভার্স করা সম্ভব নয়, যা বিটকয়েনের ট্রানজেকশনকে আরো বেশি সুরক্ষিত করে দেয়।

আপনি বিটকয়েন মাইনিং কিভাবে করবেন

শুরুরদিকে বিটকয়েনের এতো বেশি মাইনর ছিলনা, তখন যেকোনো ব্যক্তি তার নিজস্ব ব্যক্তিগত কম্পিউটারের CPU দিয়েই নতুন ব্লকচেইন খুঁজে নিতে পারত ।

কিন্ত যেমন যেমন বিটকয়েন জনপ্রিয় হতে থাকে তার সাথে সাথে বিটকয়েন মাইনিঙে বিটকয়েন মাইনরের সংখ্যা বাড়তে থাকে, পরে মাইনরদের ভিড়ে বিটকয়েনের ব্লকচেইন খুঁজে পাওয়া দুর্লভ হতে থাকে।

কিন্তু আজকালকার দিনে বিভিন্ন ধরণের advanced Specialized Hardware চলে এসেছে যা দিয়ে খুব সহজেই বিটকয়েন মাইনিং করা যায়।

তার মানে এই নয় যে আপনি আজকে বিটকয়েন মাইনিঙের হার্ডওয়ার কিনে কাল থেকে বিটকয়েন মাইনিং করে কোটিপতি হয়ে যাবেন, সব কিছুর জন্যই সময় ও স্কিল দুটোই দরকার।

বর্তমানে আপনি যদি এখনো বিটকয়েনে বিনিয়োগ করেননি, তাহলে হয়তো আপনি টাকা রোজগার করার স্বর্ণাবসর হয়তো মিস করে যাচ্ছেন। বর্তমানে ব্যাঙ্কে নিবেশ করার থেকে বিটকয়েনে নিবেশ করলে অনেক বেশি মুনাফা দেয়।

আজকাল ভারতে বিটকয়েন মাইনিঙের বহু ওয়েবসাইট আছে, তার মধ্যে Wazirx হল ভারতে বিটকয়েনে নিবেশ করার অন্যতম একটি প্লাটফর্ম। আপনি চাইলে wazirx থেকে বিটকয়েন এক্সচেঞ্জ করতে পারেন।

বিটকয়েন মাইনিং কি
বিটকয়েন মাইনিং কি

বাজিরক্সে (wazirx) কেন ব্যবহার করবেন

Wazirx হল ভারতে বিটকয়েন কেনা বেচা করার একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম। Wazirx ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটিতে এন্ড্রোইড মোবাইল চালাতে পারেন এমন যে কোনো ব্যক্তি খুব সহজে বিটকয়েন একাউন্ট খুলতে পারেন।

তাছাড়া Wazirx এর ইউজার্ ফ্রেন্ডইলি লুক, অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জ ওয়েবসাইট গুলোর তুলনায় অনেক বেশি আকর্ষণীয় এবং অনেক বেশি ফিচার মানুষকে সহজেই আকৃষ্ট করে।

বাজিরক্স (wazirx ) ক্রিপ্টোকারেন্সি ওয়েবসাইটের কিছু বৈশিষ্ট –

  1. বাজিরক্স (wazirx) ট্রেডিং প্লাটফর্ম ব্যবহার আপনি আপনার ল্যাপটপ ও কম্পিউটার (window + Mac Opreating System) ছাড়াও এন্ড্রোইড,আই ও এস মোবাইল প্লাটফর্মে মোবাইলে এক্সেস করতে পারেন।
  2. বাজিরক্স (wazirx) ক্রিপ্টো কারেন্সি প্লাটফর্ম থেকে USDT (Tether United State Dollars, ১:১ backed US Dollars ধরা হয়) করে আপনি ১০০ এরও অনেক বেশি ট্রেডিং প্লাটফর্মে বিটকয়েন এক্সচেঞ্জ করার বিশেষ সুবিধা আছে।
  3. বাজিরক্স (wazirx) এর অতি দ্রুতগতি সম্পন্ন আধুনিক ইলেক্ট্রনিক হোস্টিং সার্ভার প্রতি সেকেন্ডে কোটিরও বেশি ট্রানজেকশনের ইউজার লোড নিতে সক্ষম। তাই বাজিরক্স প্লাটফর্ম থেকে করা বিটকয়েনের সমস্ত রকম লেনদেন স্থিরতার সঙ্গে কোনো রকম সার্ভিস এরর ছাড়াই অনেক দ্রুত সম্পন্ন করে।

বাজিরক্স (wazirx ) থেকে বিটকয়েন কিভাবে কিনবেন

আপনার ক্রিপ্টো কারেন্সি কেনার ইচ্ছে থাকে তাহলে আপনি বাজিরক্স (Wazirx) এর বিটকয়েনের ওয়েব সাইট থেকে বিটকয়েন কিনতে পারেন।

ক্রিপ্টো কারেন্সি আপনি আপনার মোবালের Wazirx এর মোবাইল এপ্লিকেশন এবং কম্পিউটার ব্রাউজারের wazirx ওয়েবসাইট খুলে ধাপে ধাপে ক্রিপ্টো কারেন্সি কিনতে পারেন।

পরিশিষ্ট

প্রিয় পাঠক বন্ধুরা আমার বিশ্বাস আপনারা এতক্ষনে নিশ্চয় বিটকয়েন মাইনিং কি বা বিটকয়েন কিভাবে তৈরী হয় এবং বিটকয়েন তৈরীর পিছনে ব্লকচেইন টেকনোলজি ব্যবহারের একটি মৌখিক ধারণা পেয়ে গেছেন।

পাঠক বন্ধুদের কাছে আমরা সর্বদা যথাউপযুক্ত উৎকৃষ্টমানের কন্টেন্ট উপহার দেওয়ার প্রয়াস করি। আমাদের আর্টিকেলটি পড়ে যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটে ০৫ ষ্টার রেটিং দিয়ে আমাদের পরিশ্রমকে স্বার্থক করুন।

5/5 - (1 vote)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here