বাল আধার কার্ড কি, বাল আধার কার্ডের সুবিধা,বাল আধার কার্ড করতে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে

আপনারা জানেন বর্তমানে আধার কার্ড খুব গুরুত্ব পূর্ণ একটি নথি। তাই আধার কার্ডকে একজন ভারতীয় নাগরীকের বায়োমেট্রিক পরিচয় পত্র বলা হয়।

কিন্তু আধার কার্ডের জগতে ২০১৮ সালে UIDAI তার ওয়েবসাইটে নতুন একটি সংযোজন যোগ করেন। UIDAI এর নতুন সংযোজনের নাম হল বাল আধার কার্ড।

এবারে প্রশ্ন হল বাল আধার কার্ড কি ? বাল আধার কার্ড বলতে ঠিক কি বোঝানো হচ্ছে। আসলে এতদিন পর্যন্ত মানুষ শুধু প্রাপ্ত বয়স্কদের বায়োমেট্রিক পরিচয় পত্র হিসাবে আধার কার্ডকে জানত,

কিন্তু ২০১৮ সালের পর থেকে UIDAI তার ওয়েব সাইটের নতুন সংস্করণে শিশুদের স্ব-চিত্র পরিচয় প্রমান পত্র হিসাবে বাল আধার কার্ডকে সংযুক্ত করেন।

আসুন তাহলে বাল আধার কার্ড কি ? বাল আধার কার্ডের সুবিধা,বাল আধার কার্ড করতে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে, বাল আধার কার্ড অনলাইন আবেদন করার নিয়ম,বাল আধার কার্ডের পুরো কনসেপ্ট আর একটু ভালো ভাবে বোঝা যাক।

বাল আধার কার্ড কি

Unique Identification Authority of India (UIDAI) ২০১৮ সালে তাদের নতুন সংস্করণে প্রান্ত বয়স্কদের পাশাপাশি ০৫ বছরের নিচের বয়সের শিশুদের জন্যে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন

ছাড়াই স্ব-চিত্র পরিচয় পত্র হিসাবে আধার কার্ড দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। UIDAI এর ০৫ বছরের নিচের শিশুদের স্ব-চিত্র পরিচয় পত্র স্বরূপ ইউনিক সংখ্যার আধার কার্ডকে বাল আধার বলা হয়।

অবশ্যই পড়ুন : অনলাইন রেশন কার্ড আবেদন স্ট্যাটাস চেক করার নিয়ম

বাল আধার কার্ডের বৈশিষ্ট কি

  • শিশুদের বাল আধার কার্ডের রং হবে নীল রঙের, তাই বাল আধারকে নীল আধার কার্ড বলা হয়।
  • শিশুদের এই আধার কার্ড কোনো রকম বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন ছাড়াই দেওয়া হবে।
  • শিশুদের বাল আধার কার্ডে শিশুর আঙুলের ছাপ, চোখের মনির স্ক্যান করা হবে না।
  • শিশুর অভিভাবকের বায়োমেট্রিক পরিচয় পত্র অথাৎ শিশুর অভিভাবকের আধার কার্ডের ভিত্তি করে বাল আধার কার্ড দেওয়া হবে।
  • বাল আধার কার্ড শুধু ০৫ বছরের নিচে যে সমস্ত শিশুদের বয়স, তারাই বানাতে পারবে।
  • বাল আধার কার্ড শিশুদের ০৫ বছর বয়স পর্যন্ত বৈধ্য থাকবে।
  • বাল আধারে শুধু মাত্র শিশুর ছবি,নাম,ঠিকানা,জন্মতারিখ,পিতার নাম,ঠিকানা সহ ১২ ডিজিটের ইউনিক ডেন্টিফিকেশন নম্বর দেওয়া হবে।
  • নোট : ০৫ বছর পর বাচ্চার বাল আধার কার্ডে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন করতে হবে, তা নইলে বাচ্চার বাল আধার কার্ডটি বৈধ্য থাকবে না। বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন করা হলে
  • নতুন করে আধার কার্ড ইস্যু করা হবে। তবে বাল আধার কার্ডের ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন নম্বরের কোনো পরিবর্তন হবে না।

অবশ্যই পড়ুন : হেলথ আইডি কার্ড অনলাইন আবেদন করার নিয়ম।

বাল আধার কার্ডের সুবিধা কি

আপনারা সবাই জানেন আজকালকার দিনে আধারের নথি যে কোনো জায়গায় কতটা গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাঙ্ক,পোস্ট অফিস ইত্যাদি জায়গায় ছোট বড় সব কাজে আধার কার্ড বাধ্যতা মূলক।

তাই আধার কার্ডের প্রাধান্যতা সব জায়গাতেই আছে। আসুন এক নজরে বাল আধারের সুবিধা গুলো একটু জানা যাক –

০১. এখনকার দিনে স্কুলে বাচ্চার এডমিশন করতে গেলেই, বাচ্চার আধার কার্ড চাওয়া হয়। অনেক বাচ্চার আধার কার্ড না থাকার জন্যে,বাচ্চার মা বাবাকেই অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয়।

কিন্তু আপনার বাচ্চার বাল আধার কার্ড থাকলে আপনাকে আধার কার্ড নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আপনি আপনার বাল আধার কার্ড সমস্ত জায়গায় নথি হিসাবে দিতে পারেন।

০২. আপনার শিশু যাতে সরকারি ভূর্তুকি ও পরিসেবা থেকে বঞ্চিত না হয় তার জন্যে আধার কার্ড থাকাটা জরুরী।

০৩. বর্তমানে ট্রেন,বিমান যাত্রা ,বেড়াতে গিয়ে হোটেলে থাকার জন্যে আধার কার্ড চাওয়া হয়।

০৪. আজকাল সমস্ত সরকারি স্কুলে মিড-ডে-মিল দেওয়া হয়। সরকারি ভাবে স্কুল থেকে আধার কার্ড চাইলে মিড-ডে-মিল এর ভুয়ো-ভাঁওতা রুখতে আধার কার্ডের নথি দরকার পড়তে পারে।

০৫. বিভিন্ন জায়গায় নমিনি ফর্ম ফিলাপ করার সময় নমিনি ডিটেলস চাওয়া হয়। সেখানে নমিনি ডিটেলস ভরার সময় বাচ্চার আধার কার্ডের তথ্য দিতে হয়।

অবশ্যই পড়ুন : রেশন কার্ড আধার লিংক হয়েছে কিনা চেক করার নিয়ম।

বাল আধার কার্ড করতে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে

বাল আধার কার্ড করতে যে সমস্ত ডকুমেন্ট গুলোর প্রয়োজন হবে, সেই সমস্ত ডকুমেন্ট গুলো হল-

০১. ০৫ বছরের নিচে যে সমস্ত শিশুর বয়স, সেই শিশুর বাল আধার কার্ড করার জন্যে শিশুর জন্ম প্রমান পত্রের (Bearth Certificate) এর দরকার হবে।

০২. শিশুর বাল আধার কার্ড বানানোর জন্যে, শিশুর বাবার আধার কার্ডের তথ্য (আধার কার্ডের জেরক্স) জেরক্স দিতে হবে।

নোট : আপনার বাচ্চার বয়স ০৫ বছরের বেশি হলে, আপনার বাচ্চার আধার কার্ড বানানোর জন্যে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন বাধ্যতামূলকভাবে করতে হবে।

UIDAI এর নিয়ম অনুযায়ী বাচ্চার বয়স ০৫ ও ১৫ বছর বয়স হলে দুইবার বাচ্চার আধার কার্ডে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন করাতে হবে।

কারণ ০৫ বছরের নিচের শিশুদের হাতের রেখা স্পষ্ট হয়না,তাই ০৫ বছরের নিচের বাচ্চাদের বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশনের দরকার হয় না।

আবার বাচ্চার বয়স ১৫ বছর হয়ে গেলে হাতের রেখার পরিবর্তন হয়,তাই বাচ্চার বয়স ১৫ বছর হলে আধার কার্ডের সঙ্গে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন করাতে হয়।

বাল আধার কার্ড অনলাইন আবেদন করার নিয়ম

আমরা এখানে কয়েকটি ধাপে বাল আধার কার্ড আবেদন করার নিয়ম গুলি দেখাব। বাল আধার কার্ড আবেদন করার জন্যে সবার প্রথমে আপনাকে আপনার মোবাইল কিংবা কম্পিউটারের

কোনো একটি ব্রাউজারে গিয়ে UIDAI এর অফিসিয়াল ওয়েব সাইটটি ভিজিট করতে হবে। ওয়েবসাইটটিতে ভিজিট করতেই আপনার সামনে UIDAI এর অফিসিয়াল ড্যাশবোর্ড টি ওপেন হয়ে যাবে।

ধাপ ০১: UIDAI এর ড্যাশবোর্ডে আপনি Get Aadhar এর একটি অপশন দেখতে পাবেন। সেখানে নিচে Locate an Enrolment Center এর পাশে Book an Apoinment এর লেখার উপর ক্লিক করতে হবে।

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

ধাপ ০২: এরপর আপনার সামনে নতুন একটি উইন্ডো খুলে যাবে। সেখানে আপনাকে Proceed Book an Apoinment এর অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে।

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

ধাপ ০৩: এখানে আবার একটি নতুন উইন্ডো ওপেন হবে সেখানে পর পর Mobile Number এর জায়গায় আপনাকে আপনার Mobile Number টি বসাতে হবে।

তার নিচে ক্যাপচা কোড দেখে দেখে ক্যাপচা কোডটি যথাস্থানে বসিয়ে, Send OTP অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে। এবার আপনার মোবাইলে আসা ছয় ডিজিটের OTP টি বসিয়ে দিয়ে Submit OTP & Proceed বটনের উপর ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ০৪: ঠিক একইভাবে আবার একটি নতুন উইন্ডো খুলে যাবে, সেখানে আপনাকে New Enorolment এর অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ০৫: এখানে আবার একটি নতুন উইন্ডো দেখতে পাবেন, সেখানে আপনাকে Name এর জায়গায় আপনার বাচ্চার নাম লিখতে হবে, একইভাবে Date Of Birth এর জায়গায় বাচ্চার বয়স দিন/মাস/তারিখ এইভাবে বসাবেন।

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

তারপর Gender এর জায়গায় আপনার সন্তান পুরুষলিঙ্গের হলে Male এর অপশনে, আর যদি মেয়ে হয় তাহলে Female এর অপশনে ক্লিক করবেন।

Resident Type এর জায়গায় Indian থাকতে দিন তারপর Save & Proceed এর বোতামটিতে ক্লিক করুন।

ধাপ ০৬: এবারের নতুনভাবে ওপেন হওয়া উইন্ডোটিতে বাচ্চার Relative Details পূরণ করতে হবে। এখানে Relation Type এর কলমে আপনাকে Father অপশনটি নির্বাচন করতে হবে।

তারপর একে একে Relativ Name এর জায়গায় বাচ্চার বাবার নাম,Relativ Aadhar এর জায়গায় বাচ্চার বাবার আধার নম্বরটি বসাতে হবে। তারপর Select বক্সটিতে ক্লিক করে C/O নির্বাচন করে নিতে হবে।

এরপর Name এর জায়গায় বাচ্চার বাবার নাম লিখতে হবে। এরপর Relative Address এর জায়গায় বাচ্চার বাবার আধার কার্ডের তথ্য অনুযায়ী পুরো ঠিকানা ফিলাপ করতে হবে।

ধাপ ০৭: Contact Details এর জায়গায় নতুন করে Mobile Number নম্বর বসানোর দরকার নেই ,আপনার মোবাইল নম্বরটি নিজে থেকেই ফিড থাকবে। Email ID এর জায়গায় আপনার মেইল আইডি বসিয়ে,

নিচে Verify লেখাটির উপর ক্লিক করে মেইল আইডিটি ভেরিফাই করে নিতে হবে। তারপর Captcha Code টি দেখে পরে ক্যাপচা কোডের বাক্সে বসিয়ে দিয়ে Send OTP বটনে ক্লিক করতে হবে।

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

এবারে আপনাকে Verify email id এর জায়গায় আপনার মেইলে আসা ছয় অংকের OTP বসিয়ে Verify OTP বটনে ক্লিক করতে হবে, আপনার OTP Verify হয়ে যাওয়ার পর Save & Proceed বটনে ক্লিক করুন।

ধাপ ০৮: এবারে আপনার সামনে নতুন একটি উইন্ডো খুলে যাবে,সেখানে এতক্ষন পর্যন্ত ফিলাপ করা আধার কার্ডের আবেদনে দেওয়া সম্পূর্ণ তথ্য মিলিয়ে দেখে নিতে হবে আপনার দেওয়া তথ্যের মধ্যে কোনো ভুল রয়েছে কিনা ?

এখানে আপনি আপনার এ যাবৎ দেওয়া যাবতীয় তথ্য সঠিক হয়েছে কিনা, ভালো করে মিলিয়ে দেখতে পারেন। আপনার যদি মনে হয় আবেদনপত্রের কোথাও ভুল রয়েছে সেটা সংশোধন করা দরকার,

তাহলে প্রতিটি কলমের সামনে Edit অপশনে ক্লিক করে,আপনি আপনার আবেদন ফর্মের মধ্যে থাকা ভুল গুলো সংশোধন করতে পারেন। আর সমস্ত কিছু ঠিকঠাক থাকে

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

তাহলে নিচের দিকে স্ক্রল করে সবথেকে নিচে শর্ত ও নিয়মাবলী গুলো সম্পূর্ণভাবে পড়ার পর [√ ] Disclosure under section 3(2) of THE AADHAR

(TARGETED DELAVERY OF FINANCIAL AND OTHER SUBSIDES, BENEFIT AND SERVICE) ACT 2016 অপশনটিতে [√ ] টিক চিহ্ন বসিয়ে Submit বটনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ০৯: এতক্ষনে আপনার আবেদনপত্রটি Submit হয়ে গেলো। এখানে আবার আপনার সামনে নতুন একটি উইন্ডো খুলে যাবে, সেখানে আপনি আপনার Appoinment id দেখতে পাবেন,এখানে Book Appoinment বটনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ১০: এখানে আবার নতুন একটি উইন্ডো শো-আপ হবে। এখান থেকে আপনাকে আপনার ঠিকানায় নিকটবর্তী আধার সেবা কেন্দ্রটি Search করতে হবে। তার জন্যে আপনি সরাসরি আপনার এলাকার Pin Code দিয়েও

Get Details অপশনে ক্লিক করে Search করতে পারেন, নতুবা আপনি State,District,Post Office,Village দিয়ে Get Details অপশনটিতে ক্লিক করে আপনার নিকটবর্তী আধার সেবা কেন্দ্র গুলো Search করতে পারেন।

ধাপ ১১: এখানে আপনাকে আপনার এলাকার আধার সেবা কেন্দ্র গুলির নাম ও ঠিকানা শো-আপ করা হবে। আপনি আপনার নিকটবর্তী কোনো একটি আধার সেবা কেন্দ্র নির্বাচন করে Book Aapoinment অপশনে ক্লিক করুন।

ধাপ ১২: এবারে আপনার সামনে নতুন একটি উইন্ডো খুলে যাবে সেখানে আপনি ক্যালেন্ডার দেখতে পাবেন। ক্যালেন্ডারের মধ্যে লাল এবং সবুজ রঙের ডেট শো হবে।

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

এখানে লাল ডেট দ্বারা বোঝানো হচ্ছে ঐ তারিখে আধার সেবা কেন্দ্রের কোনো স্লট ফাঁকা নেই, তাই আপনাকে সবুজ রঙের শো-আপ হওয়া কোনো একটি তারিখকে নির্বাচন করে,

আপনাকে বাল আধার কার্ডের জন্যে স্লট বুক করতে হবে। আপনি সবুজ রঙের শো-আপ হওয়া তারিখ গুলোর মধ্যে কোনো একটি তারিখ নির্বাচন করুন।

তারপর পাশে টাইম টেবিল দেওয়া টেবিল থেকে আপনার পছন্দ সই সময় নির্বাচন করে নিন। সময় নির্বাচন করে নেওয়ার পর Submit বটনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ১৩: এখানে আবার নতুন একটি উইন্ডো খুলে যাবে, সেখানে আপনার নির্বাচন করা আধার কার্ড সেবা কেন্দ্রের নাম ঠিকানা, তারিখ ও সময় শো-আপ হবে।

বাল আধার কার্ড কি
বাল আধার কার্ড কি

আপনাকে এখানে Conform বটনে ক্লিক করতে হবে। এবার আপনার সামনে pdf আকারে AADHAR ENROLMENT FORM শো হবে ,এখানে আপনাকে আধার এনরোলমেন্ট ফর্মটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।

এখান পর্যন্ত আপনার আধার সেবা কেন্দ্রে Aadhar Enrolment Form এর অনলাইন স্লট বুকিং পক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে গেল। এবারে আপনাকে আপনার নির্বাচন করা তারিখে

সময়মত স্লট বুকিং করা আধার সেবা কেন্দ্রে Aadhar Enrolment Form টি সাথে করে আপনার বাচ্চা সহ, বাচ্চার জন্ম প্রমান পত্র, বাচ্চার বাবার আধার কার্ডের সমস্ত নথি অরজিনাল নিয়ে যেতে হবে।

আধার সেবা কেন্দ্রে আপনার বাচ্চার ছবি তোলা হবে এবং যাবতীয় কাগজপত্রের সত্যতা যাচাই করে,প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ বাচ্চার ছবি UIDAI এর ওয়েব সাইটে আপলোড করে দেওয়া হবে।

এরপর UIDAI এর তরফ থেকে ৩০ থেকে ৬০ দিনের মধ্যে আপনার বাড়ির ঠিকানায় আপনার বাচ্চার বাল আধার কার্ডটি বাইপোস্ট চলে আসবে।

তবে আপনি চাইলে আপনার বাচ্চার বাল আধার কার্ডের AADHAR ENROLMENT iD দিয়ে UIDAI অফিস ভিজিট করে আপনার বাচ্চার বাল আধার কার্ডের স্ট্যাটাস চেক করতে পারেন।

পরিশিষ্ট

আমরা আমাদের আর্টিকেলে বাল আধার কার্ড কি,বাল আধার কার্ডের সুবিধা এবং বাল আধার কার্ড অনলাইন আবেদন করার নিয়ম পুরো ধাপে ধাপে আলোচনা করে দেখলাম।

এর বাইরেও আপনার আধার কার্ড সংক্রান্ত কিংবা বাল আধার কার্ড নিয়ে কোনো রকমের সমস্যা কিংবা প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাদের কমেন্ট সেকশনে গিয়ে প্রশ্ন করতে পারেন। বাল আধার কার্ড কি

আমাদের আর্টিকেলটি ভালো লাগলে ০৫ ষ্টার রেটিং দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here