সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী (Sundar Pichai,wiki,bio,age,hight,networth Jiboni Bangla)

আজকে আমরা গুগলের (google) কর্নধার সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী আলোচনা পর্যালোচনার মাধ্যমে সুন্দর পিচাইয়ের জীবন কাহিনী আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

সুন্দর পিচাই বর্তমানে আমেরিকার সিলিকনভ্যালিতে সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে গুগল কোম্পানির চিফ এক্সউকিউটিব অফিসারের পদ ভার সামলাচ্ছেন।

ভারতীয় বংশভূত সুন্দর পিচাই এক দশকের বেশি সময় ধরে গুগল কোম্পনির সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে যুক্ত রয়েছেন। তিনি তার সেবা কালে গুগল কোম্পানির হয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজের মধ্যে দিয়ে

গুগলের ইতিহাসে নিজের নামের সাথে একজন ভারতীয় হিসাবে নজির গড়েছেন। গুগলের নিজস্ব প্রোডাক্ট ক্রোম (Chorme) ব্রাউজারের উৎখাপন সুন্দর পিচাইয়ের এক অভিনব সৃষ্টি।

সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী (Sundar Pichai Wiki,Bio in Bangla)

আসুন আমরা নিচের তালিকায় সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী wiki,bio,Bangla short list এ একটু চোখ বুলিয়ে নিই-

পুরো নাম (Full Name)পিচাই সুন্দরাজন
বর্তমান নাগরীক (Citizenship)মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (USA)
মাতৃভুমি (Home country)ভারত (India)
শিক্ষা (Education)IIT খড়্গপুর পশ্চিমবঙ্গ(ভারত),স্টেনফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং পেনসিবলেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়।
ধর্ম (Religion)হিন্দু (Hindu)
ভাষা (Language)তেলেগু,হিন্দি,ইংরেজি
পেশা (Occupation)গুগল CEO,কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার
লম্বা (Hight)০৫ ফুট ১১ ইঞ্চি
ওজন (Weight)৬৫ কেজি
রাশি (Zodiac Sign)কর্ক রাশি
সম্পত্তির পরিমান $০১.২ আরব ডলার (৮৩,৭৩,০০,০০,০০০)
সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী

সুন্দর পিচাইয়ের জন্ম ও তার পরিবার (Sundar Pichai Birth & Family)

সুন্দর পিচাইয়ের জন্ম তামিলনাড়ুর মাদুরাই শহরে হয়েছিল। সুন্দর পিচাইয়ের বাবা ব্রিটিশ ইন্ডিয়ায় ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার এবং মা লক্ষী পিচাই একজন স্টেনোগ্রাফার ছিলেন।

সুন্দর পিচাই তার কলেজ জীবনের বান্ধবী অঞ্জলী পিচাইকে বিয়ে করেন,বর্তমানে তাদের দুজন ছেলে মেয়ে আছে- কিরণ পিচাই এবং কাব্যা পিচাই।

জন্ম তারিখ (Birthday)১২ ই জুলাই,১৯৭২
জন্মস্থান (Birth Place)মাদুরাই, তামিলনাড়ু (ভারত)
বাবার নাম  (Father’s Name)রঘুনাথ পিচাই
মায়ের নাম (Mother’s Name)লক্ষী পিচাই
ভাইয়ের নাম (Brother’s Name)সুন্দর পিচাইয়ের একজন ছোট ভাই আছে
স্ত্রীর নাম (Wife’s Name)অঞ্জলী পিচাই
সন্তানের নাম (Children’s Name)কিরণ পিচাই এবং কাব্যা পিচাই
সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী

সুন্দর পিচাই শিক্ষা (Sundar Pichai Education)

সুন্দর পিচাই চেন্নাইয়ের জহর বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাস করেন এবং উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন চেন্নাই IIT এর অধীনস্থ বানা বাণী স্কুল থেকে। এরপর তিনি খড়্গপুর IIT (পশ্চিমবঙ্গ,ভারত) থেকে মেটালারজিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং

পাস করার পর উচ্চ শিক্ষার জন্য আমেরিকা চলে যান। সেখানে তিনি স্টেনফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভৌতিক বিজ্ঞান বিষয়ের উপর মাস্টার ডিগ্রী হাসিল করেন। তারপর তিনি পেনসিবলেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে MBA পাস করেন।

সুন্দর পিচাইয়ের প্রারম্ভিক জীবন (Sundar Pichai Early life)

সুন্দর পিচাইয়ের বাবা রঘুনাথ পিচাই তার দুই ছেলে ও স্ত্রী লক্ষী পিচাইকে নিয়ে চেন্নাইয়ের ০২ কামরার একটি ফ্ল্যাট বাড়িতে বসবাস করতেন। দুই কামরার ঘরের একটিতে পিচাইয়ের বাবা ও মা

আর একটিতে পিচাই ও তার ভাই থাকতেন। সুন্দর পিচাই ছোট থেকেই একজন মেধাবী ছেলে ছিলেন। তখন পর্যন্ত ভারতে নম্বর ডায়েল করা ল্যান্ড ফোন আসেনি তখন রোটারি ডায়েল করা ল্যান্ড ফোন ব্যবহার হত।

সুন্দর পিচাইয়ের ফ্ল্যাট বাড়িতেও সেরকমই একটা রোটারি ল্যান্ড ফোন ছিল। সেই রোটারি ফোনের টেলিফোন ডাইরেক্টরীর সমস্ত নম্বর সুন্দরের ঠোটস্থ ছিল।

সুন্দর চেন্নাইয়ের বানা বাণী স্কুল থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করার পর সর্বভারতীয় জয়েন্ট এন্ট্রাস পরীক্ষায় বসেন এবং প্রথমবারের চেষ্টাতেই তিনি জয়েন্ট পাস করে যান।

তারপর তিনি খড়গপুর IIT থেকে মেটালারজিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেন। সুন্দর পিচাই পড়াশোনার পাশাপাশি ক্রিকেট খেলতে খুব পছন্দ করেন। স্কুল জীবনে সুন্দরের অধিনায়কত্বেও তার টিম সর্বপ্রথম রাজ্য স্তরে ক্রিকেটে ট্রফি জেতে।

IIT খড়্গপুরে পড়ার সময় তিনি অঞ্জলীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান, কিন্তু উচ্চ শিক্ষার জন্যে তাকে মাঝখানেই প্রেমের বিরহ নিয়েই পাড়ি দিতে হয় মার্কিন যুক্ত রাষ্ট্রে।

পিচাইয়ের অধ্যাপক পিচাইকে পিএইচডি করার পরামর্শ দেন কিন্তু প্রেমিকা অঞ্জলীর বদান্যতায় পিএইচডি না করে ধাতব বিজ্ঞান ও অর্ধপরিবাহী পদার্থবিজ্ঞানের ওপর তিনি মাস্টার্স ডিগ্রি করেন।

এরপর প্রেমিকা অঞ্জলী সুন্দরের কাছে মার্কিন মুলুকে চলে আসেন এবং তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। শুরুরদিকে সুন্দর পিচাই আমেরিকার সিলিকন ভ্যালিতে অ্যাপ্লাইড ম্যাটিরিয়ালস নামে

একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানির প্রোডাক্ট ম্যানেজারের চাকরি গ্রহণ করেন। এখানে চাকুরী নিয়েই নব দম্পতীর সংসারের চাকা ক্রমশ একটু একটু করে এগিয়ে যাচ্ছিল।

কিন্তু সুন্দরের সেই চাকুরী এখানে বেশিদিন স্থায়ী হলনা, সুন্দর পিচাই চাকুরী ছেড়ে ২০০২ সালে বৃত্তি পেয়ে পেনসিবলেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে MBA পড়া শুরু করেন।

সেখান থেকে MBA পাস করার পর তিনি ম্যাককিনসে এন্ড কোম্পানিতে ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্ট হিসাবে চাকুরী গ্রহণ করেন।

সুন্দর পিচাইয়ের গুগল ক্যারিয়ার (Sundar Pichai with Google Carrier)

২০০৪ সালে পয়লা এপ্রিল সুন্দর পিচাই গুগুলে ইন্টারভিউ দেওয়ার জন্যে যায় এবং সেদিনই সুন্দর পিচাইয়ের গুগলে সিলেকশন হয়ে যায়। কাকতালীয়ভাবে সেই দিনই গুগুল অফিসিয়ালভাবে জিমেইল লঞ্চ করেছিলেন।

গুগুল তার জিমেইল পরিষেবা সর্বসাধারণের জন্য যে একেবারে ফ্রিতে দিতে চলেছেন,এই ব্যাপারটা সুন্দর পিচাই ও তার বন্ধুদের কাছে ব্যাপারটা পয়লা এপ্রিলে এপ্রিল ফুলের মত লেগেছিল।

গুগলে শুরুরদিকে সুন্দরকে গুগলের রিসার্চ টিমে জায়গা দেওয়া হয়। গুগুলের সার্চ টুলবার দিয়ে সুন্দর পিচাই তার কাজ শুরু করেন। ২০০৬ সালে গুগলের কাছে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী মাইক্রোসফট

উইন্ডোজ ইন্টারনেট এক্সপ্লোর ব্রাউজারের বাই ডিফল্ট ‘বিং‘ সার্চ ইঞ্জিনের সংযোজন ঘটালে,গুগুল চরম আর্থিক সমস্যার সম্মুখীন হয়। পিচাই তখন কম্পিউটার নির্মাতা কোম্পনিগুলোকে কনভেন্স করে কম্পিউটারে

গুগলের সার্চ টুলবারের গুরুত্ব বোঝাতে সক্ষম হন। এইভাবে সুন্দর পিচাই গুগলে তার অসামান্য যোগদান দিয়ে গুগুল কোম্পানিকে বড়সড় আর্থিক লোকসানের হাত থেকে বাঁচিয়ে দেয়।

সুন্দর গুগলের প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেজ এবং সেগ্রেই ব্রিনজকে গুগুলের নিজস্ব প্রোডাক্ট ব্রাউজার স্বরূপ ক্রোম ব্রাউজার উদ্ঘাটনের জন্যে অনুপ্রাণিত করেন। সুন্দর তার রুচি ও উদ্ভাবনী শক্তি দিয়ে

গুগলের নতুন প্রোডাক্ট গুগুল ক্রোম ব্রাউজার, গুগুল ড্রাইভ এর মত সময়উপযোগী প্রোডাক্ট লঞ্চ করেন। সুন্দর পিচাইয়ের নিদারুন উদ্ভাবনী শক্তি দেখে গুগুল ২০০৮ সালে সুন্দর পিচাইকে

গুগুলের ভাইস চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসারের পদে আসীন করেন। পরে ক্রোম ব্রাউজারে জনপ্রিয়তা এবং অল্পদিনের মধ্যে দুনিয়ার নম্বর অন ব্রাউজারের তকমা পাওয়ায় সুন্দরকে গুগল কোম্পনি, ২০১২ সালে গুগুলের কর্নধার হিসাবে নিযুক্ত করেন।

সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী
সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী

২০১১ সালে ক্রোমবুকের বিটা ভার্সন লঞ্চ করা হয়, এরপর গ্রাহকদের ফিডব্যাক ও ভালো মন্দ বিচার বিমর্শের পর ফাইনালি ২০১২ সালে গুগুল তার নতুন প্রোডাক্ট ক্রোমবুক পাবলিকের জন্যে উন্মুক্ত করে দেয়।

২০১৩ সালে স্মার্ট ফোন নেটওয়ার্কে গুগলের এন্ড্রইডের সংযোজনে সুন্দর পিচাই আরো একবার মন নিবেশ করেন। সুন্দর পিচাই এন্ড্রোইডে নতুন করে এন্ড্রোইড ওয়ান এর সংযোজন ঘটান।

এরপর স্মার্টফোন নির্মাতা বহু কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করে কমদামে বাজারে এন্ড্রোইড স্মার্টফোন নিয়ে আসেন। বাজারে উইন্ডোজ ফোনের টক্করে এন্ড্রোইড স্মার্টফোনের সংযোজন আসতেই

এন্ড্রয়েডের সঙ্গে গুগলের মিশ্রণ পাবলিকে আকৃষ্ট করে। এইসময় গুগল এন্ড্রোইড কোলাবরেশন স্মার্টফোনের দুনিয়ায় একসাথে নতুন ৫০০ কোটি গ্রাহক যোগ করে।

সুন্দর পিচাইকে ঘিরে কিছু বাদ ও বিবাদ

সুন্দর পিচাই একজন নিরীহ মনের মিতভাষী মানুষ, তাই সুন্দরকে ঘিরে সেরকম বাদ বিবাদ শোনা যায়না। তবে ২০১৮ সালে গুগলের একজন স্টাফ জেমস ডেমোর এর সঙ্গে একটি বাদ বিবাদের ঘটনা সামনে আসে।

জেমস ডোমার তার এক বিবৃতিতে জানায় গুগলে মহিলা অপেক্ষা পুরুষদের বেশি পরিমানে সুযোগ দেওয়া হয়। গুগুল সম্পর্কে এই রকম বিবৃতি দেওয়ার জন্য সুন্দর পিচাই জেমস ডোমেরকে গুগল থেকে নির্বাসিত করে দেয়।

সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী ঘিরে সুন্দর পিচাইয়ের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা (Sundar Pichai life Intersting fact)

০১. সুন্দর পিচাই ছোট বেলা থেকেই অনেক বড় বড় সংখ্যা মনে রাখতে পারতেন।

০২. সুন্দর পিচাইয়ের বুদ্ধিমত্তা দেখে টুইটার, মাইক্রোসফটের মত কোম্পানি বহুবার জব অফার করেছেন, কিন্তু তবুও তিনি শেষ পর্যন্ত আজও গুগল কোম্পানির সঙ্গেই আছেন।

০৩. ২০১১ সালে টুইটার কোম্পানি সুন্দর পিচাইকে মোটা অঙ্কের টাকা অফার করেন, কিন্ত সুন্দর পিচাই তার পত্নী অঞ্জলীর পরামর্শে গুগলে থাকার সিন্ধান্ত নেন।

০৪. সুন্দর পিচাই এবং তার পত্নী অঞ্জলী একসাথে খড়্গপুর IIT তে পড়াশোনা করেছেন। গুগল ম্যাপ উদ্ঘাটনের পিছনে সুন্দরের পত্নী অঞ্জলীর অবদান আছে বলে মনে করা হয়।

একবার সুন্দর পিচাই অফিস শেষ করে তার স্ত্রীর সাথে একটি পার্টি এটেন্ড করার জন্যে একটি রেস্টুরেন্টে আহ্বান জানায়। কিন্ত তার স্ত্রী রাস্তা ভুল করে পার্টিতে অনেক দেরিতে পৌঁছায়।

আর যতক্ষনে স্ত্রী অঞ্জলী পার্টিতে পৌঁছায় ততক্ষনে পার্টি শেষ হয়ে গেছিল। এর জন্যে সুন্দরকে তার স্ত্রীর রোষানলের মধ্যে পড়তে হয়। এরপর সুন্দরের মনে হয় তাইতো তার স্ত্রীরই মত কত মানুষ

এইভাবে রাস্তা না চিনতে পেরে প্রতিদিন হয়রানির স্বীকার হচ্ছে, এই কথা চিন্তা করে সুন্দর পিচাইয়ের মাথায় গুগুল ম্যাপ তৈরী করার ভাবনা আসে এবং সুন্দর পরে গিয়ে গুগল ম্যাপ লঞ্চ করেন।

সুন্দর পিচাইয়ের আবিষ্কৃত গুগল ম্যাপ আজ ইন্টারনেটের দৌলতে স্মার্ট ফোন নেটওয়ার্কের গুগল ম্যাপ লক্ষ লক্ষ পথিককে রাস্তা দেখাচ্ছে।

০৫. সুন্দর পিচাই আজও নানা কাজের ফাঁকে তার কলেজ জীবনের কলিক এবং খড়গপুর IIT এর ছাত্র ও ছাত্রীদের সাথে গুগল মিটে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সময় অতীতবাহিত করেন।

সুন্দর পিচাইয়ের বেতন

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে গুগলের হোল্ডিং কোম্পানি অলফ্যাব্রেট সুন্দর পিচাইকে ২৭৩,৩২৮ শেয়ার সাম্মানিক হিসাবে প্রদান করেন। এখন বর্তমানে সুন্দর পিচাই গুগল এবং অলফ্র্যাবেট দুটি কোম্পানির সিও পদে আসীন আছেন।

গুগল কোম্পানি সুন্দর পিচাইকে পারিশ্রমিক বাবদ বাৎসরিক ২৮ কোটি ৬২ লক্ষ ডলার প্রদান করে থাকেন। এছাড়াও গুগল আলাদা করে সুন্দর পিচাইয়ের নিরাপত্তার জন্য বাৎসরিক ২৭ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা মত খরচ করেন।

FAQ.

প্রশ্ন- সুন্দর পিচাই কে ?

উঃ- সুন্দর পিচাই হলেন গুগল কোম্পানির সিইও।

প্রশ্ন- সুন্দর পিচাইয়ের বাড়ি কোথায় ?

উঃ- সুন্দর পিচাইয়ের বাড়ি হল ভারতবর্ষের তামিলনাড়ু রাজ্যের মাদুরাই শহরে।

প্রশ্ন- সুন্দর পিচাইয়ের স্যালারি ?

উঃ- সুন্দর পিচাইয়ের আনুমানিক বাৎসরিক বেতন ২৮ কোটি মার্কিন ডলার।

প্রশ্ন- গুগলের সিইও কে ?

উঃ- গুগলের সিইও হলেন সুন্দর পিচাই।

পরিশিষ্ট

আজকের আর্টিকেলে আমরা গুগুল কোম্পনীর সিইও ভারতীয় বংশভূত সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী সম্পর্কে দু-একটা কথা আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করলাম।

সুন্দর পিচাই গুগলের কর্ণধার হিসাবে আজকে শুধু নিজের নাম উজ্জ্বল করেননি, তিনি নিজের নামের সাথে ১১০ কোটি ভারতীর মান বাড়িয়েছেন।

তাই একজন ভারতীয়কে বিশ্বের অন্যতম তথ্য প্রযুক্তি নির্মাতা কোম্পনীতে অধিষ্ঠিত দেখে আমাদের মন গর্বে ভরে উঠে। আজকে সুন্দর পিচাই লক্ষ লক্ষ ছাত্র ও ছাত্রী ও তরুণ প্রজন্মের কাছে অনুপ্রেণার পাত্র।

আমাদের লেখা সুন্দর পিচাইয়ের জীবনী আপনাদের কেমন লাগলো এবং সুন্দর পিচাইকে গুগলের সিইও পদে দেখে আপনাদের কেমন লাগে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানাবেন।

4/5 - (2 votes)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here